Benefits of oats

ওটসের উপকারিতা

Whole Oats এ রয়েছে

Whole Oats এ রয়েছে” Averanthramides ” এমন একটি এন্টি অক্সিডেন্ট যা হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়। ওটসের অনেক উপকারিতা থাকায় যেমনঃ ব্লাড সুগার কমানো ,কোলেস্টেরল লেভেল কমানো ইত্যাদি কারণে ওটসকে স্বাস্থ্যকর খাবার হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এছাড়া ওটসের মধ্যে সেলেনিয়াম নামের এমন একটি এন্টি -অক্সিডেন্ট থাকে যা শরীরের বিভিন্ন রকম কার্য সম্পাদনে সহায়তা করে। শরীরে সেলেনিয়ামের মাত্রা কম থাকলে মৃত্যুর ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়,রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও কমেএবং মস্তিষ্কের কার্যকারিতার উপর প্রভাব বিস্তার করে। সাধারণত ওটস খুব সহজে হজম হয়ে যায় ও শরীরে কোন খারাপ প্রভাব ফেলে না। কিন্তু যেসব মানুষের ” Avenin”  নামক উপাদানে সংবেদনশীলতা রয়েছে তাদের ওটস গ্রহণ করার ফলে সমস্যা হতে পারে। আবার যাদের Gluten – Intolerance রয়েছে তাদের নিজেদের খাদ্য তালিকা থেকে ওটস বাদ দেয়া শ্রেয় । উৎপাদনের পর প্রক্রিয়াজাতকরণের সময় ওটস অন্যান্য শস্যের সাথে মিশে যায় যেমন : গম। যাদের Celiac Disease রয়েছে বা গমে এলার্জি রয়েছে তারা ওটস খেলে সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন।

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *